“ওরাকল ও ডেভেলপার” ইঞ্জিনিয়ার [পর্ব-১] :: যারা হতে চান তাদের জন্য এই টিউন

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম

আসসালামু আলাইকুম। বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আমি আপনাদের দোয়াই ভালোই আছি.আমি সম্পূর্ণ টেকটিউন নতুন । আমার প্রথম পোষ্ট যদি ভুল করে থাকি ক্ষমা করবেন । হাজির হয়েছি আপনাদের কাছে আমি মো.রহিম উদ্দিন সোহাগ “ওরাকল ও ডেভেলপার ” নিয়ে । আমি ‘ফেণী পলিটেকনিক ইন্সিটিটিউট’এ কম্পিউটার টেকনলজি “ডিপ্লোমা-ইন- ইঞ্জিনিয়ারিং” শেষ করলাম । আমার স্বপন আমি ওরাকল ইঞ্জিনিয়ার হব এবং তার জন্য আমি কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছি কারন এর ভবিষ্যৎ অবশ্যই ভাল । আমাকে ওরাকল সর্ম্পকে বলেছেন আমার মাছুম আংকেল তার অনুপ্রেরনায় এই পথে আসা আর স্যার হিসাবে আমাকে সার্পোট দিচ্ছেন কম্পিউটার টেকনোলজি বিভগীয় প্রধান আমার প্রিয় স্যার “Engr.S.M.Hamidul Hoque”( Ms in Electronics & Telecommunication Engineering,B.Sc.In Computer Science & engineering ) এবং টেকটিউন এ টিউন দিতে পুরো সাহায্য করেছেন “টিউনার sohag” আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ । আমি সব সময় ব্যতিক্রম কিছু করার চেষ্টা করি । ধাপে ধাপে আমরা ওরাকল শিখব । চলুন শুরু করি

বর্তমান বিশ্বে তথ্যের অবাধ প্রবাহ সব কিছুতেই ব্যাপক পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছে । বিশাল তথ্য ভান্ডারের এর নিকট আমরা ক্রমশ নির্ভশীল হয়ে পড়েছি । আর একটি শক্তিশালী ডেটাবেজ তড়িৎ ভূমিকা রাখে । ওরাকল ডেটাবেজ বিশ্বের একটি অপ্রতিদ্বন্দ্বী ডেটাবেজ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে । তাছাড়া এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা শক্তিশালী

১ম পর্বে আমরা প্রাথমিক ভাবে জানবো

ডেটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কে?

ডেটাবেজ ভূমিকা

ডেটা কী :
DATA শব্দের অর্থ হচ্ছে তথ্যের উপাদান (an item of information)। তথ‌‌্যের অন্তর্ভুক্ত ক্ষুদ্রতম অংশ সমুহ হচ্ছে ডেটা বা উপাত্ত যেমন : প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের পে-রোল তৈরী করার জন‌্য নাম,পদবি,কোড নং ,মূল বেতন ইত্যাদি । ডেটা বিভিন্ন প্রতীক ঃ অ ,ক,A,B,1,2 ইত্যাদি অথবা কোন ছবি যেমন: চন্দ্র,সূর্য,গাড়ি অন্য যেকোন কিছু হতে পারে

তথ্য কী:

সরবরাহকৃত ডেটা থেকে প্রক্রিয়ার পর নির্দিষ্ট চাহিদার প্রেক্ষিতে সুশৃংখল যে ফলাফল পাওয়া যায় তাকেই বলা হয় তথ্য বা information । যেমস: নম্বর ভিত্তিক ফলাফল, ছবি, রির্পোট, গবেষণার ফলাফল ইত্যাদি
2011-08-11_024243
ডেটাবেজ কী:

Data অর্থ হচ্ছে তথ্য বা উপাত্ত আর Base অর্থ হচ্ছে ঘাটি বা সমাবেস । ডেটাবেজ শব্দের অর্থ হচ্ছে কোন বিষয় উপর ব্যাপক তথ্য বা উপাত্তরে সমাবেশ । উদাহরণ হিসাবে আমরা দিতে পারি “ভোটার তালিকায় সংরক্ষতি ভোটারদের তথ্যসমুহ ,কোন কোম্পানির কর্মচারীদের ব্যক্তিগত ফাইলে রেকর্ড সংরক্ষন করা ইত্যাদি । আর উক্ত ডেটা টেবিলের সমন্বয়ে গঠিত কিন্তু বর্তমানে ডেটাবেজ ধারনা অনেক ব্যাপকতা লাভ করছে এখন ডেটাবেজ এর আওতা এক বা একাধিক ডেটা টেবিল,কুয়েরি,ফর্ম,রির্পোট.মডিউল ইত্যাদি ফাইল থাকতে পারে। কোন ডেটাবেজ এ এক বা একাধিক টেবিল থাকতে পারে

2011-08-11_021959

ডেটাবেজ এর বিভিন্ন উপাদান :

কম্পিউটারে ডেটা একটি নিদির্ষ্ট ধারা অনুসারে থাকে প্রথম ক্ষুদ্রতম একক হল

বিট( bit ): ১টি ডেটার ক্ষুদ্রতম যে অংশ একটি কম্পিউার ব্যবহার করে তাকে বিট বলে যেমন: ০,১ এগুল বিট
বাইট(Byte): ৮টি বিট নিয়ে ১বাইট গঠিত হয় : ১বাইট নিয়ে ১টি অক্ষর গঠিত হয়,নম্বর বা প্রতিক বুঝানো হয়
ফিল্ড(Field): একাধিক অক্ষর সমন্বয় গঠিত হয় ১টি শব্দ বা সংখ্যা একে ফিল্ড বলে । যেমন: কোন ব্যক্তির নাম বা বয়স ফিল্ড হতে পারে
রেকর্ড(Record): পরস্পর সম্পর্ক যুক্ত একগুচ্ছ ফাইলকে রেকর্ড বলে । যেমন : স্টুডেন্ট এর নাম,ঠিকানা,যেসব বিষয় নেয়া হয়েছে সবকিছু একত্রে রেকর্ড অধীন
ফাইল(File): একই রকমের অনেকগুলো রের্কড নিয়ে ফাইল গঠিত হয় ।

ডেটাবেজ(Database): অনেক গুলো একই কাজের ফাইল একত্রে একটি ডেটাবেজ তৈরি হয় ।

2011-08-11_025250

উপরের সব উপাদান সর্ম্পকে আপনাকে অবশ্যই ভাল ভাবে যানতে হবে কারন প্রত্যেক টি ডাটাবেজ এই ৬টি উপাদান নিয়ে গঠিত হয়।

এনটিটি(Entity): কোন কিছুর নামই এনটিটি । এক কথায় কোন কিছুর নাম ই এনটিটি ব্যক্তি, বস্তু,বিষয়,ঘটনা,যা কিছু প্রকাশ করা যায় তাই এনটিটি । যেমন :কোন দোকানে আমরা যখন order দিই তা বিভিন্ন ভাবে Processing হয়ে আমাদের কাছে আসে এটাই এনটিটি

2011-08-11_031415

এ্যাট্রিবিউট(Attribute): এনটিটির বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য(গুনাগুন) থাকে ওই গুনাগুনই হচ্ছে এ্যাট্রিবিউট । যেমন : স্টুডেন্টের নাম,রোল ইত্যাদি প্রতিটি ১ ১টি এ্যাট্রিবিউট

ডেটাবেজ সংগঠন/মডেল(Database Organization/Model):

আমরা জানি যে কোন বিষয় সর্ম্পকে তথ্যের সমাবেশই হচ্ছে ডেটাবেজ। ব্যবহারকারী এই সকল তথ্য কিভাবে ব্যবহার করতে চায় তার উপর ভিত্তি করে ডাটাবেজ গঠন হয়

নিচে কতিপয় ডেটাবেজ গঠিত হয়

সরল ডেটাবেজ সংগঠন(Simple database model): কেবল একটি ডেটা টেবিলের সমন্বয় ডেটাবেজ গঠিত হলে তাকে সরল ডেটাবেজ সংগঠন বলে । এই জাতীয় রের্কড গুলো কী ফিল্ডের উপর উচ্চক্রম থেকে নিম্নক্রম অনুসারে সাজানো থাকে

2011-08-11_0219591
হায়ারারকিক্যাল সংগঠন: পরস্পর সম্পর্কিত কতগুলো রেকর্ড গুলো নিয়ে হায়ারারকিক্যাল ডেটাবেজ গঠিত হয় এই শাখা-প্রশাখা টেবিল ব্যবহৃত হয় এবং সর্বোচ্চ রের্কড কে বলা হয় ডেটাবেজের মূল।১টি (Parent) টেবিল এই মূল টেবিল থেকে বিস্তৃত হয় আর এগুলো চাইল্ড(child)টেবিল হিসাবে পরিচিত Parent টেবিল এর সাথে child টেবিল one to one বা one to many রিলেশন থাকতে পারে । এই সর্ম্পকে পরে আলোচনা করব।

2011-08-11_032833
নেটওর্য়াক ডেটাবেজ সংগঠন (Network database model): (DBTG=DATABASE TASK GROUP)নেটওর্য়াক ডেটা সংগঠন রেকর্ডসমুহ পরস্পরে সাথে link থাক

2011-08-11_034348

ডেটাবেজ ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম(Data management system):DBMS হচ্ছে পরস্পর্র সর্ম্পক যুক্ত এ তথ্যকে এবং সেই তথ্য পর্যালোচনা করার জন্য প্রয়োজনীয় প্রোগ্রামের সমষ্টি। পরস্পর সর্ম্পক যুক্ত এ তথ্য কে বলা হয় ডেটাবেজ । প্রধান উদ্দেশ্য হল “তথ্যা বলি সংরক্ষন সহজতর করা এবং তা ব্যবহার সহায়তা করা.
DBMS হচ্ছে এমন একটি সফট্ওয়ার যেটা ডেটাবেজ তৈরি,পরির্বতন,পরিবর্ধন.সংরক্ষন ,নিয়ন্তন এবং পরিচালনা করাই হল DBMS এর কাজ

2011-08-11_040356

আজ এতটুকু কারন আমি আপনাদেরকে অল্প অল্প করে শিখাবো । ওরাকল সহজ বিষয় নয় এটি সারা পৃথিবী ডেটাবেজ উপর রাজত্র করে যাচ্ছে.আমার ৫মাস লাগছে শুধু ওরাকল কি এর সম্পর্কে জান্তে.আমি চেষ্টা করব খুব সহজ ভাবে শেখাতে..আমি আমার নিয়মে লিখছি.এখন যদি বলি ওরাকল অনেক কঠিন এক বিষয় তাহলে আপনারা ভয় পেয়ে যাবেন.সময় হলে সব জান্তে পারবেন

আপনাদের কেমন লাগল আমাকে যানাতে ভুল বেনা যেন। আপনাদের অনুপ্রেরনায় আগামি টিউন উৎসাহ .গুনীজনেরো আপনারা আমার ভুল ধরিয়ে দিবেন.আবার ভুল করে থাকলে ক্ষামা করবেন..

আল্লাহ্ হাফেজ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করা হয়েছে